সুস্থ হয়ে উঠেছেন দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত ফটো সাংবাদিক জিয়া ইসলাম। বৃহস্পতিবার কর্তব্যরত ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলেছেন জিয়া। তার নিজের নাম, সন্তানদের নাম বলাসহ ডাক্তারকে চিনতে পেরেছেন তিনি।

সিঙ্গাপুরের গ্লেনইগলস হাসপাতাল সূত্রে জিয়া ইসলামের নিকটজনরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত ৯ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর পান্থপথে বসুন্ধরা সিটির উল্টো দিকের রাস্তায় এক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন দৈনিক প্রথম আলোর ফটো সাংবাদিক জিয়া ইসলাম। তার পায় ভেঙ্গে যায় এবং মাথায় গুরুতর আঘাত পান। ঘটনাস্থলে উপস্থিত কয়েকজন সাংবাদিক তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে তাকে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। সেখানে প্রায় চার ঘণ্টা ধরে তার মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য জিয়াকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরের গ্লেনইগলস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ ঘটনায় কলাবাগান থানায় মামলা করেন দৈনিক প্রথম আলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক মেজর (অব.) সাজ্জাদুল কবীর। মামলায় জিয়াকে গাড়ি চাপা দেয়ার অভিযোগে অভিনেতা-মডেল কল্যাণ কোরাইয়াকে আটক করেছিল পুলিশ। কল্যাণ পরে জামিনে মুক্তি পান।