গ্রামের মেয়েদের দিনের শেষে পানি ভর্তি কলসি নিয়ে ঘরে ফেরার দৃশ্য খুবই পরিচিত। সেই কলসি হয় মাটির তৈরি নয় তামার। নানী-দাদীদের সময় থেকে চলে আসছে এ ঐতিহ্য। বর্তমানে আমরা পানি সংরক্ষণে নানা ধরনের ফিল্টার ব্যবহার করি।

তবে আধুনিক সমাজে তামার কলসিতে পানি সংরক্ষণ সেকেলে মনে হলেও নতুন করে এর বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা মিলেছে। নানা ধরনের রোগ-ব্যাধির মুক্তি দেয় এই পদ্ধতি। এভাবে পানি সংরক্ষণ করলে পানিতে মিশে থাকা বিভিন্ন অণুজীব, শৈবাল, ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হয়।

যা মানুষকে অনেকটাই সুস্থ রাখে। সকালে ঘুম থেকে উঠে তামার পাত্রে রাখা এক গ্লাস ঠান্ডা পানি পান করা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

তামার গ্লাসে পানি পান করলে শরীরে ১১ টি উপকার হয় বলে গবেষণায় জানা যায়। 

১. হজম শক্তি বাড়ায়

২. ওজন কমাতে সাহায্য করে

৩. দ্রুত সুস্থতা লাভে সহায়তা করে

৪. বয়সের ছাপ কমায়

৫. হৃৎপিন্ডকে সুস্থ রাখে এবং প্রেসার নিয়ন্ত্রণ করে

৬. ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়

৭. রোগ-জীবাণুর সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে

৮. শরীরে থাইরয়েডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে

৯. বাতের ব্যথা প্রতিরোধে সাহায্য করে

১০. ত্বকের উজ্বলতা এবং মসৃণতা বৃদ্ধি করে

১১. রক্তশূণ্যতা কমায়।