শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজে টাইগার স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন পাঁচ নতুন মুখ। বাদ পড়েছেন আটজন, ফিরেছেন তিনজন। ২০২০ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ মাথায় রেখে নতুনদের বাজিয়ে দেখতে চাইছেন নির্বাচকরা। প্রশ্ন হল যোগ্যতা প্রমাণে কতটা সময় পাবেন তারা, আন্তর্জাতিক মঞ্চে শুরুতেই বাজিমাত না করতে পারলেই কী ছুড়ে ফেলা হবে তাদের?

জাতীয় দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার তামিম ইকবাল শুরুর পারফরম্যান্স দিয়েই একজন ক্রিকেটারকে মূল্যায়ন করার পক্ষে নন। নতুনদের পর্যাপ্ত সুযোগ দেয়ার পক্ষে আওয়াজ তুলেছেন।

মঙ্গলবার তরুণ ক্রিকেটারদের নিয়ে শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলনে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে তামিম বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় যে কোনো ক্রিকেটার লাগাতার দুই বা তিন বছর ঘরোয়াতে পারফর্ম করছে, জাতীয় দলে আসার পর তার একটা বা তিন-চারটা খারাপ ম্যাচ হতেই পারে। তাকে ওই সময় সরিয়ে দেওয়াটা আমার মনে হয় না কোনো সমাধান। আমি মনে করি, যখনই তাকে নির্বাচন করা হয় তার ওই সক্ষমতা আছে এটাই চিন্তা করা হয়। এজন্য যথেষ্ট সুযোগ দিতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এমন না আমরা অনেক অনেক খেলোয়াড় প্রস্তুত করছি। আমরা খেলোয়াড় প্রস্তুত করছি, হয়ত এইচপি ও অনূর্ধ্ব-১৯ দল থেকে আসছে। কিন্তু যখন একজন আসে, অন্তত সবার সন্তুষ্টির জন্য তাকে যথেষ্ট সুযোগ দেওয়া উচিত। কারণ আমার মনে হয় ঘরোয়া ক্রিকেট ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মধ্যে একটা বড় গ্যাপ থাকে। ওখানে খাপ খাইয়ে নেয়ারও ব্যাপার আছে। তারা (নির্বাচকরা) যদি মনে করে বাংলাদেশের হয়ে ভালো করার ওর সামর্থ্য আছে, তাকে তাহলে যথেষ্ট সুযোগ দেয়া উচিত।’

টি-টুয়েন্টি দলে নতুনরা হলেন আরিফুল হক, আবু জায়েজ রাহী, মেহেদী হাসান, জাঁকির হাসান ও আলিফ হোসেন ধ্রুব। এদের মধ্যে অফ-স্পিনার মেহেদী বিপিএলে খেলেছেন তামিমের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে। মেহেদী, আরিফুল ও রাহীকে নিয়ে বেশ আশাবাদী তামিম।

‘আমি দুই-তিনজনের নাম উল্লেখ্য করেই বলতি পারি…স্পেশালি রাহী, আমার কাছে মনে হয় ওয়েল ডিজার্ভিং। কারণ শেষ দুই বছর ধরে বিপিএলে টপ পারফর্মার বোলার হিসেবে। আরিফুল হকও শেষ  দুই-তিন বছর ধরে বিপিএলে সমানভাবে ভাল খেলে যাচ্ছে। আরও দুজন নতুন আছেন, একজন (মেহেদী) আমার সাথে খেলেছে। আমি মনে করি হি হ্যাজ অ্যা ভেরি বিগ হার্ট। আমার কাছে মনে হয় না যে এই দুই ম্যাচ অথবা সামনে আরও তিন-চারটা ম্যাচ দেখে ওকে মূল্যায়ন করা উচিত। কারণ এখনও অনেক তরুণ।’

মূর্তিকারিগর

বাংলাদেশ ওপেনার বলেন, ‘আশা করবো প্রথম ম্যাচ থেকেই নিজের একটা অবস্থান টিমে করে ফেলবে যখনই ও খেলে। ভাল একজন খেলোয়াড় কখনও নিশ্চয়তা দিতে পারবে না যে সে প্রথম ম্যাচ বা প্রথম তিন ম্যাচ ভাল খেলবে। হয়তোবা ৪ বা ৫ নাম্বার ম্যাচ থেকেও ভাল খেলতে পারে। এমনও হতে পারে প্রথম ম্যাচ থেকেও ভাল খেলতে পারে। আমি নিশ্চিত ওদেরকে এটা ভেবেই নির্বাচন করেছেন যে ওদের সামর্থ্য ও স্কিল আছে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে টি-টুয়েন্টি ভাল খেলার। আশা করবো ওদেরকে এজন্য পর্যাপ্ত সময় দেয়া হবে।’