আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন: খালেদা জিয়ার কারামুক্তির বিষয়টি সম্পূর্ণ আদালতের বিষয়। আপিলের ভিত্তিতে এ বিষয়ে আদালত সিদ্ধান্ত নেবেন। এক্ষেত্রে সরকার কোন ধরনের হস্তক্ষেপ করবে না।

মঙ্গলবার হোটেল রেডিসনের বিপরীতে এয়ারপোর্ট রোডে, বিআরটিএ এর নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ অভিযান পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন: জনগণ সাড়া না দিলে গণআন্দোলন হবে না। বিএনপির ডাকে বিগত নয় বছর সাড়া দেয়নি জনগণ। নেতারা যদি আন্দোলনের ডাক দিয়ে ঘরে বসে থাকে, তাহলে আন্দোলন কীভাবে সম্ভব?  খালেদা জিয়ার জন্য মানুষ রাস্তায় নামেনি। মানুষ কি এখন বিএনপির জন্য রাস্তায় নামবে? মানুষ এখন আর আন্দোলের মুডে নেই, নির্বাচনের মুডে আছে।

‘তারা একবার বলছে যেকোন পরিস্থিতিতে নির্বাচনে যাবে, আবার বলছে খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে যাবে না। তারা আসলে কোনটা চায়?’ বলেন ওবায়দুল কাদের।

খালেদা জিয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন: খালেদা জিয়ার আপিলের সুযোগ আছে। জামিন হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেবে আদালত। তার কারাবাস দীর্ঘ হবে কিনা আদালতই ভাল জানেন। সরকার এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন: আমরা চাই প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন, সেজন্য বিএনপির মতো বড় দলের নির্বাচনে থাকা দরকার। বিএনপির মতো বড় দল নির্বাচন আসুক। আওয়ামী লীগ বিএনপির ভাঙন চায় না, সেই চেষ্টাও করবো না।

‘তবে বিএনপি ভাঙার জন্য তারা নিজেরাই দায়ী হবে। বিএনপির সংকট আমরা ঘনীভূত করবো না, তাদের সংকট ঘনীভূত করার জন্য তারেক রহমানই যথেষ্ট’, বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।